PM Scholarship Scheme – বিরাট সুখবর! পড়ুয়ারা পাবে প্রতি মাসে ৩০০০ টাকা করে, দেবে কেন্দ্রীয় সরকার।

PM Scholarship Scheme – জীবনে চলার পথে শিক্ষা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তবে উচ্চশিক্ষা গ্রহন করতে হলে প্রয়োজনীয় অর্থের দরকার হয়। কিন্তু এমন অনেক শিক্ষার্থী রয়েছে যারা মেধাবী হয়েও আর্থিক অবস্থার কারনে নিজেদের পড়াশোনা চালাতে পারে না। উচ্চশিক্ষা গ্রহনের মাঝ পথেই পড়াশোনা থামিয়ে দিতে হয়। তাই এই মেধাবী পড়ায়াদের পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকার স্কলারশিপ বা বৃত্তি ব্যবস্থা চালু করেছেন।

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now

দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকার অনেক সরকারি বৃত্তি চালু করেছেন। শিক্ষার্থীদের যোগ্যতা এবং আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে স্কুল কর্তৃক এই সকল বৃত্তি প্রদান করা হয়। এবার কেন্দ্রীয় সরকার শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহায়তা দেওয়ার জন্য পিএম স্কলারশিপ স্কিম (PM Scholarship Scheme) চালু করেছে। যা থেকে উপকৃত হবে হাজারও শিক্ষার্থীরা।

আরও পড়ুন – Free Ration – ফ্রিতে রেশনের দিন শেষ! রেশন নিয়ে নতুন নিয়ম আনল সরকার!

পিএম স্কলারশিপ স্কিম (PM Scholarship Scheme) কি?

কেন্দ্রীয় সরকার থেকে দ্বাদশ শ্রেণী বা ডিপ্লোমা বা স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীদের এই স্কলারশিপ দেওয়া হয়ে থাকে। প্রতি বছর মোট ৫৫০০ জন শিক্ষার্থী যার মধ্যে ২৭৫০ জন পুরুষ ও ২৭৫০ জন মহিলা নির্বাচন করে এই বৃত্তি প্রদান করা হয়। তবে শিক্ষার্থী যে কোর্সের জন্য অধ্যয়ন করছে তার সময়কালের উপর বৃত্তির সময়কাল নির্ভর করে।

PM Scholarship -এর মাধ্যমে প্রতি মাসে কত টাকা দেওয়া হয়?

মহিলা শিক্ষার্থীরা৩০০০ টাকা
পুরুষ শিক্ষার্থীরা২৫০০ টাকা

কারা আবেদনে করতে পারবেন?

১) শিক্ষার্থীকে অবশ্যই দ্বাদশ শ্রেণী বা ডিপ্লোমা বা স্নাতক পরীক্ষায় ন্যূনতম ৬০ শতাংশ নম্বর পেতে হবে। তবে শুধুমাত্র প্রফেশনাল কোর্সের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীরা আবেদনের যোগ্য।
২) এছাড়াও আবেদনকারীদের অবশ্যই AICTE বা UGC দ্বারা স্বীকৃত একটি প্রতিষ্ঠান বা কলেজের শিক্ষার্থী হতে হবে।
৩) শুধুমাত্র প্রাক্তন সেনা বা উপকূলরক্ষী কর্মী বা মৃত ব্যক্তির সন্তান এবং বিধবারা এই বৃত্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন।
৪) কোনো বিদেশে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা এই বৃত্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন না।

আবেদন করবেন কিভাবে ?

১) প্রথমে সেন্ট্রাল আর্মি ডিপার্টমেন্টের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট https://ksb.gov.in/ যেতে হবে।
২) সেখানে গিয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে আনেদন ফর্মটি পূরণ করতে হবে এবং ফটো আপলোড করতে হবে।
৩) এরপর প্রয়োজনীয় নথি এবং ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের বিবরণ দিয়ে সাবমিট করতে হবে।

আবেদনের ক্ষেত্রে যে সমস্ত ডকুমেন্টস লাগবে?

1)আবেদনকারীর পাসপোর্ট ছবি, আধার কার্ড,
2) মাধ্যমিক শংসাপত্র বা প্রবেশপত্র, দ্বাদশ বা ডিপ্লোমা বা প্রি- গ্র্যাজুয়েশন মার্কশিট,
3) আধার লিঙ্কযুক্ত ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট,
4) বোনাফাইড সার্টিফিকেট, প্রাক্তন কোস্ট গার্ডের ব্যক্তিগত শংসাপত্র,
5) প্রথম পৃষ্ঠার ব্যাঙ্ক পাসবুক, পার্ট-২ অর্ডার/পিওআর, পিপিও, বা ইএসএম আইডেন্টিফিকেশন কার্ড।

আরও পড়ুন – WB Scheme – রাজ্য সরকার ২ লাখ যুবক-যুবতীকে ৫ লাখ টাকা দেবে, হাতে আর ৭দিন সময়।

JoinJoin